৩ ধরণের বিরিয়ানি রেসিপি | 3 Types of Easy Biryani Recipe

৩ রকমের বিরিয়ানি রেসিপি
৩ রকমের বিরিয়ানি রেসিপি
৩ ধরণের বিরিয়ানি রেসিপি


বিরিয়ানি !

বিরিয়ানি একটি উর্দু শব্দ, যা ফারসি ভাষা থেকে এসেছে।ফারসি ভাষায় বিরিঞ্জ ফার্সি অর্থ চাল বা ভাত।অন্যমতে, ফারসি শব্দ বিরিয়ান ফার্সি থেকে এসেছে যারঅর্থ রোস্ট বা ভেজে নেওয়া অর্থাৎ মূলত রোস্ট করা মাংস ও ভাতের সহযোগে তৈরি বিশেষ সুুস্বাদু খাবারই বিরিয়ানি। এটি বিরানি, বেরিয়ানি, বিরিয়ান্নি ইত্যাদি নামেও পরিচিত। বিরিয়ানি রান্নার আগে সুগন্ধি চাল ঘি দিয়ে ভেজে নেওয়া হয়। তাই এই নামকরণ। বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলে যে “বিরন করা” শব্দটি ব্যবহৃত হয় সেটা এই ফারসি শব্দেরই পরিবর্তিত রূপ।


বিরিয়ানি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো, বিশেষ করে ভারত, বাংলাদেশ, মিয়ানমার প্রভৃতি দেশে প্রচলিত এক বিশেষ প্রকারের খাবার যা সুগন্ধি চাল, ঘি, গরম মশলা এবং মাংস মিশিয়ে রান্না করা হয়। এটি ভারতীয় উপমহাদেশের মুসলমানদের মাধ্যমে উৎপত্তি লাভ করে। এটি সাধারনত বিশেষ অনুষ্ঠানে অতিথি আপ্যায়নে পরিবেশিত হয়।



১) সাধারণ বিরিয়ানি

সাধারণ বিরিয়ানি উপকরণঃ

১.মাংস- ১ কেজি (হাড়সহ)

২.আলু - ৩০০ গ্রাম

৩.পোলাওয়ের চাল- ১/২কেজি

৪.আদা-রসুন বাটা- ২ টেবিল চামচ

৫.টক দই- ৩ টেবিল চামচ

৬.জায়ফল ও জয়ত্রী বাটা- ১ চা চামচ

৭.মরিচ গুঁড়া - ১ চা চামচ 

৮.পেঁয়াজ কুচি- দেড় কাপ

৯.এলাচ- ৫টি

১০.তেজপাতা- ২টি

১১.দারুচিনি- ২ টুকরো

১২.লবঙ্গ- কয়েকটি

১৩. কাঁচামরিচ- ১০ টি

১৪.আলুবোখারা- ৫টি

১৫.ঘি- ২ টেবিল চামচ

১৬.কেওড়া জল- ১ চা চামচ

১৭.তেল- প্রয়োজন মতো 

১৮.লবণ - স্বাদ মতো 

সাধারণ বিরিয়ানি প্রস্তুত প্রণালিঃ

প্রথমে মাংস ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিয়ে জায়ফল,জয়ত্রী, আদা-রসুন বাটা,মরিচ গুঁড়া, এলাচ,দারুচিনি, লবঙ্গ, টক দই ও লবণ দিয়ে মেরিনেট করুন আধা ঘণ্টা।

এরপর প্যানে তেল গরম করে আলু খোসা ছাড়িয়ে সামান্য হলুদ ও লবণ মেখে তেলে সোনালী করে ভেজে তুলে রাখুন। অবশিষ্ট তেলে ১ কাপ পেঁয়াজ কুচি ভেজে নিন। পেঁয়াজ লালচে হয়ে গেলে মসলাসহ মাংস দিয়ে কষিয়ে নিন। তেল ভেসে উঠলে হালকা গরম পানি দিয়ে দিন। ফুটে উঠলে তাতে ভেজে রাখা আলু যোগ করে মাঝারি আঁচে ঢেকে দিয়ে মাংস সেদ্ধ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

পোলাওয়ের চাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। এবার বিরিয়ানি তৈরির জন্য প্যানে তেল গরম করে আধা কাপ পেঁয়াজ কুচি ভেজে নিন। পেঁয়াজ নরম হয়ে গেলে পানি ঝরিয়ে রাখা চাল দিয়ে দিন। চাল ঝরঝরে হয়ে গেলে ফুটন্ত গরম পানি দিয়ে দিন। চালের দ্বিগুণ পরিমাণ পানি দিয়ে দিতে হবে। তারপর পানি ফুটে উঠলে হালকা করে নেড়ে রান্না করে রাখা মাংস দিয়ে দিন। আস্ত কাঁচামরিচ,স্বাদ মতো লবণ ও আলুবোখারা দিয়ে নেড়ে পাত্রটি ঢেকে দিন। পানি চালের সমান হয়ে আসলে বিরিয়ানিতে ঘি যোগ করে চুলার আঁচ একদম কমিয়ে দমে রাখুন ১৫ মিনিট। তারপর ১৫ মিনিট পরে পরিবেশন করুন মজাদার বিরিয়ানি।

২) সর্ষে তেলে ঝরঝরে বিফ তেহারি

সর্ষে তেলে ঝরঝরে বিফ তেহারি উপকরণঃ 

১.মাংস- ১ কেজি

২.পোলাও চাল- ১/২ কেজি

৩.পিয়াজ কুচি- ১ কাপ

৪.জায়ফল- ১/৪ অংশ 

৫.জয়ত্রী- ছোট ২ টুকরো

৬.এলাচ - ৬ টি

৭.দারুচিনি- ২ টুকরো

৮.তেজপাতা- ২ টি

৯.গোলমরিচ - ৭ টি

১০.লবঙ্গ -৬ টি

১১.আদা-রসুন বাটা- ১ টেবিল চামচ

১২.মরিচ গুড়া ১ চা চামচ

১৩.জিরা- ২ চা চামচ

১৪.টক দই - ১/২ কাপ

১৫.দুধ- ১ কাপ

১৬.কাঁচামরিচ আস্ত -১০ টি

১৭.সরিষার তেল- প্রয়োজন মতো

১৮.লবণ- স্বাদ মতো

সর্ষে তেলে ঝরঝরে বিফ তেহারি প্রস্তুত প্রণালি

প্রথমে মাংস ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিয়ে  জয়ফল ,জয়ত্রী,ধনিয়া,জিরা,এলাচ,দারুচিনি,তেজপাতা,লবঙ্গ,গোলমরিচ একত্রে গ্রাইন্ডারে গুঁড়ো করে নিন। মাংস ছোট টুকরোয় কেটে টকদই, মরিচ,লবণ,আদা-রসুন বাটা ও গুঁড়ো করে নেয়া মসলা দিয়ে ভালো করে মেখে মেরিনেট করুন ১ ঘন্টা। একটি পাত্রে সরিষার তেল গরম করে পিয়াজ কুচি হালকা বাদামি করে ভেজে নিন। এতে মেরিনেট করা মাংস মসলা সহ দিয়ে অল্প আঁচে ঢেকে রান্না করুন। মাংস দিয়ে যে পানি বের হবে তাতেই মাংস সিদ্ধ হয়ে যাবে,অতিরিক্ত পানি যোগ করার প্রয়োজন নেই। মাংসের পানি পুরো শুকিয়ে গেলে মসলা তেল ছেড়ে দিলে পাত্রটি চুলা থেকে নামিয়ে রাখুন। এবার অপর একটি পাত্রে সামান্য তেল মাঝারি আঁচে গরম করে পোলাও চাল দিয়ে মিনিট দুই ভেজে নিন। এক কাপ দুধ সহ চালের দ্বিগুণ পরিমাণ পানি প্রয়োজনীয় ও স্বাদমতো লবণ  যোগ করুন। পানি শুকিয়ে চালের গা মাখা হয়ে আসলে এতে রান্না করে রাখা মাংস ভাল করে নেড়েচেড়ে মিশিয়ে দিন। এবার আস্ত কাঁচামরিচ ছড়িয়ে দিয়ে পাত্রটি ঢাকনা দিয়ে ঢেকে মৃদু আঁচে দমে রাখুন আরও ১৫ মিনিটের মতো।

৩) ভাতের চালের ওরসের বিরিয়ানি

ভাতের চালের ওরসের বিরিয়ানি উপকরণঃ

মাংসের জন্য-

১.গরুর মাংস- ১ কেজি

২.তেল- আধা কাপ

৩.পেঁয়াজ কুচি- ১ কাপ

৪.আদা বাটা- ১ টেবিল চামচ

৫. রসুন বাটা- ১ চা-চামচ

৬. জিরা বাটা- ১ চা-চামচ

৭.ধনে বাটা- ১ চা-চামচ

৮.লবণ - স্বাদ মতো

৯.মরিচ গুঁড়া- ২ চা-চামচ

১০.হলুদ গুঁড়া- ১ চা-চামচ

১১.গোলমরিচ- আধা চা-চামচ

১২.জায়ফল-জয়ত্রী- আধা চা-চামচ

১৩.মেথি ও মৌরি বাটা- আধা চা-চামচ

১৪.তেজপাতা- ৪টা

১৫.গরম মসলা বাটা- আধা চা-চামচ

১৬.পেঁয়াজ বাটা- ২ টেবিল চামচ

১৭. বাদাম বাটা- ১ টেবিল চামচ

চাল রান্নার জন্যঃ

১.সেদ্ধ চাল- ১ কেজি

২.লবণ- পরিমাণ মতো

৩.তেল- আধা কাপ

৪.ঘি- ২ টেবিল চামচ

৫.কাঁচা মরিচ -১০টা

৬.কিশমিশ- ১ টেবিল চামচ

৭.আখনি পানি- ৭ কাপ

আখনি পানি তৈরির জন্য-

১.পানি - ১৪ কাপ

২.রসুন- ৩ টি 

৩.আদা কুচি - ২ টেবিল চামচ

৪.এলাচ- ৮টা

৫.লবঙ্গ - ৮ টা 

৬.দারচিনি - ৪টা মাঝারি টুকরা

৭.তেজপাতা- ৪ টা

৮.আস্ত গোল মরিচ - ১০টা 

৯.মরিচ গুঁড়া- ১ টেবিল চামচ

১০. পেঁয়াজ কুচি- আধা কাপ

( আখনির পানি তৈরির জন্য সব উপকরণ দিয়ে একটি পাত্রে ১৪ কাপ পানি দিয়ে চুলায় মাঝারি আচে রাখুন। মশলা সেদ্ধ হয়ে পানি ৭ কাপে নেমে আসলে পানি ছেঁকে নিন।)

ভাতের চালের ওরসের বিরিয়ানি প্রস্তুত প্রণালিঃ

প্রথমে মাংসে সব মসলা মেখে আধা ঘণ্টা রেখে দিন। তারপর তেলে পিঁয়াজ লাল করে ভেজে মাংস ঢেলে দিতে হবে। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। তারপর মাংস সেদ্ধ হওয়ার জন্য প্রয়োজনমতো পানি দিতে হবে। পানি শুকিয়ে এলে নামিয়ে নিতে হবে। এবার পোলাওয়ের সব মসলা ৭ কাপ পানিতে ফুটিয়ে নিতে হবে। ফুটানো পানিতে চাল ঢেলে পানি শুকিয়ে এলে মাংস দিয়ে দিতে হবে। ভালোভাবে নেড়ে কিশমিশ ও মরিচ দিয়ে কম আঁচে ঢেকে রাখতে হবে।

Post a Comment

Previous Post Next Post
close